নেটখাতা

February 6, 2009

বিড়ি ও নেতাজি

মধ্যরাত অতিক্রান্ত। মধ্যমগ্রাম চৌমাথা থেকে বাণী আসছে, মাইকে, বিড়ি জ্বালাইলে জিগরসে পিয়া – জিগরমা বহত আগ হ্যায়। সুভাষমেলা। কদম কদম বঢ়ায়ে যা। জিগরমা কতটা আগ থাকলে তবেই এটা সম্ভব, এখনো এই মধ্যরাতে বিড়ি জ্বালিয়ে দেওয়া – এবং যা শুনেছি, সুভাষমেলা শেষ হলে উদ্যোক্তাদের তীর্থভ্রমণের আয়োজনেরও ব্যবস্থা করা। জয়তু নেতাজি।

February 2, 2009

সরস্বতীপুজো এবং মাল্টিতলার পাবলিক জুয়া

একটা খুব সংক্ষিপ্ত ব্লগ, কাজের বড় চাপ যাচ্ছে, কিন্তু এটা এতটাই বিচিত্র যে উল্লেখ করার লোভ সামলাতে পারলাম না।

এবারের সরস্বতীপুজোয় মাইকবাজি ছেড়েই দিন, ও সব চুলোয় যাক, একটা ভারি বিচিত্র অভিজ্ঞতা হল আমাদের পাড়ার মাল্টিতলার ছাদের পুজোয়। সেখান থেকে গাঁক গাঁক করে মাইক বাজিয়ে, গতকাল সন্ধা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলল ‘হাউসি’ নামের একটা জুয়া। সেটা ঠিক কী খেলা আমি জানিনা। কিন্তু যেমন করে ওরা বিজ্ঞাপন করছিল, মাইকে ঘোষণা করে চলছিল, বলছিল যাতে নিশ্চয়ই আরো বেশি লোক এসে যোগ দেয়, ‘দশ টাকা দিন, যত খুশি জিতে নিন’, বা, ‘এটা একটা সংখ্যা ও ভাগ্যের খেলা’, এবং সঙ্গে সঙ্গে ইংরিজি করে জানিয়েও দিচ্ছিল, তাতে এটা যে একটা জুয়া সেটা বেশ বুঝতে পারছিলাম। আমি ঘরে বসে লেখাপড়ার চেষ্টা করছিলাম, এবং এগুলি শুনতে বাধ্য হচ্ছিলাম। কোথায়ই বা যাব? আমার খুব বিচিত্র লাগছিল গোটাটা, এবং খুবই অচেনাও লাগছিল। সরস্বতীপুজোর সঙ্গে কীভাবে জুয়াখেলা সম্পৃক্ত হল কে জানে? এবং মাইকের ঘোষণা থেকেই যাদের যাদের নাম ঘোষিত হচ্ছিল, তার দু-একজনকে চিনিও, তাতে মালুম হচ্ছিল, পারিবারিক ভাবেই অনেকে যোগ দিয়েছে এই জুয়ায়? এবং এরা কেউ সে অর্থে লুম্পেন নয়, সমাজবিরোধী নয়, বৌ-বাচ্চা ছেলে মেয়ে আছে, তারা পড়াশুনোও করে। কোথায় কবে কী করে যে এত  বদলে যাচ্ছে চারপাশটা, বুঝতেও পারিনা। আমার এত অদ্ভুত লেগেছে গোটাটা যে ব্লগে উল্লেখ না-করে পারলাম না।

Powered by WordPress